National University Honours Admission Circular 2020-2021- জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২০২১


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। একই সঙ্গে ভর্তির নির্দেশিকাও প্রকাশ করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ভর্তি বিজ্ঞপ্তির তথ্যমতে, ২৮ জুলাই বিকেল চারটা থেকে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি আবেদন আবার শুরু হবে। অনলাইনে এ আবেদন চলবে আগামী ১৪ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত।

অনার্স ভর্তি টাইমলাইন

আবেদন শুরুর তারিখ : ২৮ জুলাই ২০২১ (বিকাল ৪.০০ টা)
আবেদনের শেষ তারিখ : ১৪ আগষ্ট ২০২১
ফি জমাদানের শেষ তারিখ : ১৬ আগষ্ট ২০২১
আবেদন ফি : ২৫০ টাকা
অনলাইনে ক্লাশ শুরু : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
আবেদনের লিংক:  www.nu.edu.bd

আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীতে মানবিক/বিজ্ঞান/ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ভর্তির সাধারণ শর্তাবলীগুলো হল:

 বাংলাদেশে স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড/উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক শাখা থেকে ২০১৭/২০১৮ সালের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ এবং ২০১৯/২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ প্রাপ্ত প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

 বাংলাদেশে স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বাের্ড/উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ২০১৭/২০১৮ সালের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৩.০ এবং ২০১৯/২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ প্রাপ্ত প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

 প্রার্থীদের উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান পরীক্ষায় পঠিত বিষয়সমূহ থেকে ভর্তি যােগ্য (Eligible) বিষয় নির্ধারণ করা হবে। উক্ত পঠিত বিষয়ে (২০০ নম্বরের) ন্যূনতম গ্রেড পয়েন্ট ৩.০ থাকতে হবে।

 আবেদনকারী উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় যে শাখা থেকে উত্তীর্ণ হয়েছে তাকে সেই শাখার জন্য নির্ধারিত ভর্তির প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।

 উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় গার্হস্থ্য অর্থনীতি শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী মানবিক শাখার আবেদন ফরম পূরণ করবে।

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ন্যূনতম যোগ্যতা

পরীক্ষার নামপাসের সনন্যূনতম জিপিএ
এসএসসি ও সমমান (মানবিক)২০১৭/২০১৮২.৫
এসএসসি ও সমমান (বিজ্ঞান ও ব্যবসায়)২০১৭/২০১৮৩.০

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ন্যূনতম যোগ্যতা

পরীক্ষার নাম পাসের সন ন্যূনতম জিপিএ
এইচএসসি ও সমমান (মানবিক)২০১৯/২০২০২.৫
এইচএসসি ও সমমান (বিজ্ঞান ও ব্যবসায়)২০১৯/২০২০২.৫
বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বাের্ড থেকে  এইচ.এস.সি ২০১৯/২০২০ ২.৫

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজে এসএসসি বা সমমান ও এইচএসসি বা সমমানের ফলাফলের ভিত্তিতে স্নাতকে ভর্তি নেওয়া হবে। ফলে এবার কোনো ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে না।

ভর্তি পদ্ধতি, নম্বর বন্টন

ক) প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা তৈরী করে প্রার্থীদের পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে।

খ) একই প্রতিষ্ঠান/কলেজে একই বিষয়ে দুই বা ততােধিক আবেদনকারীর মেধাক্রম এক হলে সেক্ষেত্রে পর্যায়ক্রমে এ সকল আবেদনকারীর বয়স এবং এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে মেধাক্রম প্রণয়ন করা হবে।

ভর্তি–ইচ্ছুক প্রার্থীদের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ওয়েবসাইটে আবেদন পূরণ করে আগামী ১৬ আগস্টের মধ্যে প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০ টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রদান করতে হবে। ভর্তির সব কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর অনলাইনে শুরু হবে স্নাতক প্রথম বর্ষের ক্লাস।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

আবেদনকারীদের ভর্তি বিষয়ে অধিকতর তথ্য প্রদানের জন্য ভর্তি নোটিশটি যুক্ত করা হল ।

National University Honours Admission Circular 2020-2021

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তির আবেদন পদ্ধতি

  1. লগইন
    আবেদনকারীকে নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে (www.nu.ac.bd/admissions) Honours tab-এ গিয়ে Apply Now (Honours) অপশনে ক্লিক করতে হবে এবং ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত তথ্য ছকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার রােল নম্বর, শিক্ষা বাের্ড/বিশ্ববিদ্যালয় ও পাসের সন সঠিকভাবে এন্ট্রি দিতে হবে।
  2. সঠিক লিঙ্গ নির্ধারণ
    এ পর্যায়ে আবেদনকারীর অনলাইনে সংরক্ষিত ডাটাবেজের তথ্য অনুযায়ী Male/Female প্রদর্শিত হবে। আবেদনকারীর তথ্য ছকে Male এর স্থলে Female বা Female এর স্থলে Male প্রদর্শিত হলে Click to | Change অপশনে গিয়ে সঠিক তথ্য এন্ট্রি দিতে হবে।
  3. কলেজ পছন্দ
    আবেদনকারী তার পছন্দ অনুযায়ী বিভাগ ও জেলাওয়ারী যে কোন কলেজের নাম Select করলে সংশ্লিষ্ট কলেজে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর অধিভুক্ত বিষয়সমূহের নাম ও আসন সংখ্যা দেখতে পাবে। |
  4. বিষয় পছন্দক্রম
    ওয়েবসাইটের তথ্য ছক থেকে পছন্দ অনুযায়ী একটি কলেজ Select করলে আবেদনকারী সংশ্লিষ্ট কলেজে তার ভর্তি যােগ্য (Eligible) বিষয়ের তালিকা দেখতে পাবে এবং এই তালিকা থেকে প্রার্থীকে সর্তকতার সংগে তার প্রার্থিত বিষয়ের পছন্দক্রম নির্ধারণ করতে হবে। এই পছন্দক্রম অনুসারে মেধার ভিত্তিতে বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে।
  5. কোটা
    মুক্তিযােদ্ধার সন্তান/আদিবাসি/প্রতিবন্ধী/পােষ্য কোটায় ভর্তি হতে ইচ্ছুক প্রার্থীকে তথ্য ছকের নির্দিষ্ট স্থানে তার জন্য প্রযােজ্য কোটা Select করতে হবে। কোটায় আবেদনের ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত মূল সনদপত্র থাকতে হবে। একজন প্রার্থী এক বা একাধিক কোটায় যােগ্য হলে কোটার পছন্দক্রম নির্ধারণ করে দিতে হবে। |
  6. ছবি সংযোজন
    প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণের সময় প্রার্থীর পাসপোের্ট আকারে সম্প্রতি তােলা রঙ্গিন ছবি Scan করে আপলােড করতে হবে। ছবির মাপ ১২০X১৫০ pixels, Image Type: jpg এবং maximum file size:50Kb হতে হবে।( প্রার্থীর ছবি ব্যতীত অন্য কোন ছবি আবেদন ফরমে আপলােড করা হলে ঐ প্রার্থীর ভর্তি বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করবে।)
  7. ফরম চূড়ান্তকরণ
    সঠিক তথ্য ও ছবিসহ ছক পূরণ করে প্রথমে ফরমটি Submit Application অপশনে ক্লিক করতে হবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারীর রােল নম্বও ও পিন কোড প্রদর্শিত হবে এবং আবেদনকারীকে ফরমটি ডাউনলােড করে | [A4 (8.5”×11) অফসেট সাদা কাগজে] প্রিন্ট (Print) নিতে হবে।
  8. আবেদন ফরম বাতিলকরণ/ত্রূটিপূর্ণ ছবি পরিবর্তন
    আবেদন ফরম সংশ্লিষ্ট কলেজে জমাদানের পূর্বে কোন প্রার্থী তার প্রাথমিক আবেদন ফরমটি বাতিল/ত্রূটিপূর্ণ ছবি। পরিবর্তন করতে ইচ্ছুক হলে তাকে Applicant’s Login (Honours) অপশনে গিয়ে আবেদন ফরমের রােল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিতে হবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারীকে Form Cancel/Photo Change Option এ | গিয়ে Click to Generate the Security key অপশনটি ক্লিক করতে হবে। এ সময়ে প্রার্থী তার আবেদন ফরমে উল্লিখিত ব্যক্তিগত মােবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে One Time Password (OTP) পাবে। এই OTP এন্ট্রি দিয়ে প্রার্থী তার আবেদন ফরমটি বাতিলপূর্বক নতুন করে আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে। এ লক্ষ্যে আবেদনকারীকে তার ব্যক্তিগত সঠিক মােবাইল নম্বর সতর্কতার সংগে আবেদন ফরমে এন্ট্রি দিতে হবে। তবে কলেজ কর্তৃক প্রাথমিক আবেদন ফরম নিশ্চয়ন করার পর তা আর বাতিল করা যাবে না। প্রার্থী ছবি পরিবর্তনের সুযােগ মাত্র একবারই পাবে।
  9. সংশ্লিষ্ট কলেজে ফরম জমা ও ফি প্রদান
    আবেদনকারীকে প্রিন্ট করা প্রাথমিক আবেদন ফরমটির নির্ধারিত স্থানে স্বাক্ষর করতে হবে। এই আবেদন ফরমের সংগে প্রার্থীর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার সত্যায়িত নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত কপি ও প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- (দুইশত পঞ্চাশ) টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে। প্রাথমিক আবেদন ফরমটির দ্বিতীয় অংশ কলেজ অধ্যক্ষদায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকের স্বাক্ষর ও সীলসহ প্রার্থীকে ফেরত দিবে। কলেজ যে সকল প্রাথমিক আবেদন ফরম online-এ নিশ্চয়ন করবে সে সকল প্রার্থী তাদের মােবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে তা জানতে পারবে। প্রাথমিক আবেদন নিশ্চয়ন ব্যতীত কোন প্রার্থীই ভর্তির যােগ্য বলে বিবেচিত হবে না। কলেজে আবেদন পত্র জমা দেয়ার পরে প্রার্থী তার মােবাইল ফোনে SMS না পেলে বুঝতে হবে যে তার আবেদন ফরম কলেজ কর্তৃক নিশ্চয়ন করা হয়নি। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যােগাযােগ করতে হবে।

ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে

ভর্তি ফি ও জমাদানের পদ্ধতি

ভর্তির জন্য নির্বাচিত প্রার্থীর বিভিন্ন ফিসের হার
i) শিক্ষার্থী প্রতি রেজিস্ট্রেশন ফি = ৪৫০/- (চারশত পঞ্চাশ) টাকা।
ii) শিক্ষার্থী প্রতি ক্রীড়া ও সংস্কৃতি ফি = ২০/- (বিশ) টাকা বিভিন্ন ফিসের।
iii) শিক্ষার্থী প্রতি বিএনসিসি ফি = ৫/- (পাঁচ) টাকা
iv) শিক্ষার্থী প্রতি রােভার স্কাউট ফি = ১০/- (দশ) টাকা
মােট = ৪৮৫ (চারশত পঁচাশি) টাকা

*শিক্ষার্থী প্রতি ভর্তি বাতিল ফি = ৭০০/- (সাতশত) টাকা


Leave a Reply

Your email address will not be published.